৪৩তম জাতীয় ইজতেমা,

মজলিস আনসারুল্লাহ বাংলাদেশ

 

৮,৯,১০ ডিসেম্বর ২০২২

বৃহ:, শুক্র, শনিবার

ইজতেমা আপডেট

majlis ansarullah bangladesh office.jpeg
for_background.PNG

৪৩তম জাতীয় ইজতেমা, মাজলিস আনসারুল্লাহ বাংলাদেশ

৮,৯,১০ ডিসেম্বর ২০২২, বৃহ:, শুক্র, শনিবার

FRIDAY SERMON.jpeg

জুমুআর খুতবা

হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.) কর্তৃক প্রদত্ত

হুজুরের (আই.) তাহরিককৃত

Mubarak-Mosque.jpg

মজলিসে আনসারুল্লাহর আহাদনামা

আশহাদু আল্লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারীকালাহু ওয়া আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়া রাসূলুহু। (৩ বার পড়তে হবে)।

 

আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি, আল্লাহ ছাড়া কোন উপাস্য নাই। তিনি এক-অদ্বিতীয়, তাঁর কোন শরীক নাই। আমি আরও সাক্ষ্য দিচ্ছি, মুহাম্মদ (সা.) তাঁর বান্দা ও রসূল।

 

আমি প্রতিজ্ঞা করছি, ইসলাম ও আহমদীয়াতের দৃঢ়তা ও এর প্রচার এবং নেযামে খিলাফতের সংরক্ষণের জন্য শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত আপ্রাণ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাব এবং এর জন্য যে কোন ত্যাগ স্বীকার করতে দ্বিধা করব না। এছাড়া আমার সন্তান-সন্ততিদেরকে খিলাফতের প্রতি উৎসর্গীকৃত ও অনুরক্ত থাকতে সর্বদা তাগিদপূর্ণ উপদেশ দিতে থাকব। | (ইনশাআল্লাহ্ তা'লা)।।

প্রকাশনা

প্রতিশ্রুত মসীহ ও ইমাম মাহদী (আ:)
 

Image-8_2x.png

স্থানীয় মজলিসের কার্যক্রম

হযরত মীর্যা গোলাম আহমদ (আঃ) ১৮৩৫ সনে কাদিয়ানে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯০৮ সনে মৃত্যূবরণ করেন। তিনি আল্লাহ্‌র পক্ষ থেকে মনোনিত হবার প্রথম ওহী লাভ করেন ১৮৮২ সনে। তিনি ইসলাম ও হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর অনুপম সৌন্দর্য ও গুণাবলী সম্বলিত ‘বারাহীনে আহ্‌মদীয়া’ নামে তাঁর রচিত প্রথম বই প্রকাশ করেন ১৮৮৪ সনে। তিনি প্রায় ৮৮টি বই রচনা করেছেন। আল্লাহ্‌ তা’আলার নির্দেশে তিনি ১৮৮৯ সনে আহ্‌মদীয়া মসুলিম জামাতের প্রতিষ্ঠা করেন। তাঁর মুত্যূর পরে কুরআন ও হাদীসের নির্দেশ অনুযায়ী ১৯০৮ সনের ২৭শে মে জামাতের মধ্যে খিলাফত ব্যবস্থা প্রবর্তিত হয়।

Image-11_2x.png

মিনারাতুল মসীহ

সাম্প্রতিক কার্যক্রমের এক ঝলক

majlis ansarullah bangladesh office.jpeg
Log-MAB.png

Majlis Ansarullah Bangladesh

আহমদীয়া মুসলিম জামাতের

চল্লিশোর্ধ পুরুষদের সংগঠন

আযান শুনুন

মৌলানা ফিরোজ আলম সাহেবের কন্ঠে

 

মজলিস আনসারুল্লাহ বাংলাদেশ কর্তৃক নির্মিত মসজিদ

মসজিদ নূর 

খেলাফত শতবার্ষিকী স্মারক মসজিদ

ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ

noorMosque.JPG